আপনার পছন্দমত যে কোন ধরনের লেখা হতেপারে সেটা কোন হাসির ঘটনা (মজার কোন স্মৃতি /কৌতুক) , শিক্ষণীয় কোন ঘটনা, কবিতা , এই সাইটের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ যে কোন লেখা বা মতামত ইত্যাদি পোস্ট করতে পারেন। মানসম্মত লেখা নামসহ সাইটে পাবলিশ করা হয়।
আইডি নং- সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে প্রেরকের নামঃ-
74 ????????? ?? ???? ???? ??? ?? , ??? ? Why dont show Bengali font from Database ? Anup
76 কোন কিছুই দেখা যাচ্ছিলো না বাংলা ফন্ট ! এখন ঠিক হয়েছে । Anup _ অনুপ
86 গুরু গৌরাঙ্গ জয়তঃ জয় শ্রীল প্রভুপাদ ___জয় গুরুমহারজ !! হরে কৃষ্ণ , সকল বৈষ্ণবের শ্রীচরণে আমার শ্রদ্ধেয় কোটি প্রণাম। আমরা সকলেই বেস্ত সুখ পেতে , কেউ ভাবেন সম্পদে রয়েছে সুখ , কেউবা স্ত্রীতে আছে বলে ভাবে , কেও ভাবেন সমাজ সেবায় , কেউ ভাবতে পারেন নেশায় ! তাই নয় কি !? সুখ তাতেই পাওয়া যায় যা ভগবান দ্বারা অনুমোদিত , যা শাস্ত্রে উল্লেখিত , যা ভগবানের জন্য করা হয় , এইরূপ কাজেই রয়েছে প্রকৃত সুখ। আর ভগবান এত কৃপালু যে , আমার ভুলে যাওয়া সত্ত্বেও বার বার আমাদের স্মরণ করিয়ে দেন আমার শরণাগত হও। সকল কর্ম যদি আমরা কৃষ্ণ কে কেন্দ্র করে করি তবে অব্যশই আমরা প্রকৃত শান্তির খোঁজ পাবো। এই বিষয় টি তুলে ধরার ক্ষুদ্র চেষ্টা আমি ক্ষুদ্র কৃষ্ণ ভক্ত আজকে করবো। সকলেই দেখাতে ব্যস্ত , দেখো আমার এটা আছে , আমি অমুক আমি তমুক ! আমি সুখী , আমি খুব সুখী !!! কিন্তু বাস্তবে কখনো ভেবেছেন আপনি কতটা সুখী ? অবশ্যই আপনি বলতে পারেন আপনি সুখী , কিন্তু সেই সুখ তো স্থায়ী নয়! খানিক সময় পরই কোননা কোনো কারণ বসত আমরা আমাদের মনকে দুঃখী করে ফেলছি । কারণ আমরা কৃষ্ণ বিমুখতা করছি , প্ৰকৃত সুখ কেবল কৃষ্ণভাবনাতেই রয়েছে। এই প্রসঙ্গে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ গীতায় বলেছেন, ২/৬৬ শ্লোকে ; "যেই ব্যক্তি কৃষ্ণভাবনায় যুক্ত নয় , তার চিত্ত সংযত নয় এবং তার পারমার্থিক বুদ্ধি থাকতে পারে না। আর পরমার্থ চিন্তা শূন্য বেক্তির শান্তি লাভের কোনো সম্ভবনা নেই। এইরকম শান্তি হীন বেক্তির প্ৰকৃত সুখ কোথায়?" ভগবান ৫/২৯ নম্বর শ্লোকে বলছেন ; জীব যখন কৃষ্ণকে সকল কিছুর পরম ভোক্তা এবং নিজেকে তার নিত্য দাস রূপে শিকার করে , তিনি পরম শান্তি লাভ করেন। শ্রীল প্রভুপাদও বার বার বলেছেন ; কারণ ভক্ত সর্বদা ভগবানের বাণী প্রচারে উৎসুক ! আমাদের বর্তমান অবস্থা একটা গল্পের সাদৃশ্যের ন্যায় তুলে ধরা যাক : এটা অনেকটা এইরকম , লাইন এ কিছু অপরাধী দাঁড়ানো। একজন একজন করে অপরাধীরা পুলিশের রুম এ যাচ্ছে , কেন ? কারণ পুলিশ বলেছেন তাদের তিনি ভোজন করাবেন। তাই তারা যাচ্ছে , তো যেই যাচ্ছে সেই পুলিশের হাতে মার খেয়ে আসছে। তার পর বাহিরে আসার পর যখন আরেকজন জিজ্ঞাসা করছে ভোজন কেমন ?! যেই বেক্তিটি ভিতরে গিয়েছিলো সে জানে ভোজন কেমন! হা হাঃ হা !!! তবে সে তো মার্ খেয়েছে।.. সে ভাবলো আমি মার্ খেয়েছি তারা না খেলে হয় নাকি!!! তাই সেও উত্তরে বলে ; , অপূর্ব ভোজন তুমিও যাও !! এইরূপ সকলেই যাচ্ছে এবং মার্ খাচ্ছে , কিন্তু যারা বুদ্ধিমান তারা তা বুঝে নিয়ে সেই মার্ নামের ভোজন খেতে রাজি নন। এই বুদ্ধিমানকে একজন সাধুর সাথে তুলনা করা যেতে পারে এবং যারা মার্ খাচ্ছে তাদের জাগতিক মায়াবাদীদের সাথেই তুলনা করা যেতে পারে। (বাস্তবতা এই যে পুলিশ কখন ও কোনো অপরাধীকে যত্ন করেন না কারণ এটা পুলিশের দায়িত্ব অপরাধী কে শাস্তি দেওয়া । সেই রূপ মায়া দেবী রয়েছেন আমাদের দুঃখ দেবার জন্যই, এইটাই তার দায়িত্ব। যখন কোনো অপরাধী অপরাধ ছেড়ে ভালো হন তখন পুলিশ যেমন যত্নের হাত বাড়িয়ে দেন , তেমনই আমরা যখন সব ছেড়ে কৃষ্ণ কে ভালোবাসবো , তখন স্বয়ম মায়া দেবী আমাদের পৌঁছে দিবেন ভগবানের কাছে এবং এটাই বাস্তব। ) প্রত্যেকেই সুখের আশায় সংসারকে আমার আমার করে ভোগের তাড়নায় মায়ার দ্বারা দুঃখ ভোগ করছেন , কেন ? কারণ তাদের দেখতেই হবে সে কত প্রভাবশালী , কত লোক আছে তার , কত টাকা আছে তার , কত রূপ আছে তার , কত গুন্ আছে তার। ইত্যাদি !!!!! কিন্তু শাস্ত্র পরিষ্কার ভাবে বলছেন , এই সবই বৃথা মায়া। মায়া শব্দের অর্থ হলো : মা অর্থাৎ___ যা এবং য়া অর্থাৎ নেই। সুতরাং মায়া শব্দের অর্থ যা নেই ? তাহলে যা নেই কেন আমরা তার জন্য অযথা দুঃখ ভোগ করবো?? ভগবান শ্রী কৃষ্ণ বলেছেন ১৮৬৬ শ্লোকে ; (গীতা ) "কেবল আমার শরণাগত হয় , আমি প্রতিজ্ঞা করছি তুমি সর্ব ভয় থেকে ও সর্ব পাপ থেকে মুক্তি পাবে।" এথলে আমাদের আর কিসের প্রয়োজন !? যেই কৃষ্ণভাবনায় আমরা স্বয়ম ভগবানকে পাচ্ছি , তা ছেড়ে অন্য রাস্তায় সুখ খোজা বোকামি ছাড়া অন্য কিছু হতে পারে নাহ। এ যারা বুদ্ধিমান তারা সংসার করছেন তবে কৃষ্ণ কে কেন্দ্র করেন , যার ফলে তারা সংসারে থাকলেও কৃষ্ণ স্বয়ম তাদের শান্তি ও পরম আনন্দ প্রদান করেন। কলিযুগে ভগবান প্রাপ্তি অত্যন্ত সহজ , শুধু আন্তরিকতার সাথে কৃষ্ণ নাম জপ মাধ্যমেই কৃষ্ণ কে পাওয়া যেতে পারে এবং যে পাবে কৃষ্ণের চরণ তার থেকে বোরো বড় সুখী কে হতে পারে !? সুতরাং আসুন জপ করি সবাইমিলে , "হরে কৃষ্ণ হরে কৃষ্ণ কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে হরে রাম হরে রাম রাম রাম হরে হরে " হরে কৃষ্ণ আপনাদের নিত্য দাস-------- শ্রী দুরন্ত কৃষ্ণ দাস(অধম ) Sri Duranta Barman From; Bd Email; durantabarman680@gmail.com
লক্ষ্য করুন=>  সবার লেখাগুলো সরাসরি আমাদের ডাটাবেজে জমা হবে, এবং পাবলিশ হয়ে যাবে তাই আপত্তিকর কোন লেখা চোখে পড়লে সাথে সাথে এডমিনকে জানাতে বা মেইল করতে ভুলবেন না। যে কোন লেখা বা মতামত পোস্ট করতে এখানে ক্লিক করুন ।

অনলাইন ইউজার কর্তৃক আপলোডকৃত বিভিন্ন লেখা বা কৌতুকগুলো => সনাতন ধর্মীয়, ভগবান শ্রীকৃষ্ণ , দেব-দেবী , সাম্প্রতিক বিষয় , আপনার পছন্দ , প্রেমের কবিতা , প্রার্থনা, সাম্প্রতিক ঘটনা , বিবিধ বিষয়ে , হাসির ঘটনা, স্বামী - স্ত্রী , বিখ্যাতদের নিয়ে, বোকা ও বুদ্ধিমান , ডাক্তার ও রোগী , শিক্ষক ও ছাত্র , অলসতা , কৃপণতা , চাপাবাজি , প্রেমিক-প্রেমিকা , মাতাল-পাগল , বন্ধুদেরকে নিয় , বিবিধ কৌতুক