বাংলা সুনির্বাচিত কৌতুক Bangla Selected Jokes

হাসলে নাকি আয়ু বাড়ে- তাই হাসুন, মন খুলে হাসুন, কারণ হাসলে হার্ট / হৃদয় / মন ভালো থাকে => আর মন ভালো- তো সবই ভালো।

অধিকাংশ জোকস অনলাইন থেকে সংগৃহীত- শুধুমাত্র আপনাদের আনন্দ বিধানের জন্যই এই প্রচেষ্টা, কাউকে ছোট বা হেয় করার উদ্দেশ্যে নয় ; তাই এ ব্যাপারে কারো কোন আপত্তি থাকলে এডমিনকে অবশ্যই জানাতে ভুলবেন না।

* * * Anupamasite-এ আপনাকে স্বাগতম। আপনার পছন্দমত যে কোন ধরনের লেখা বা কৌতুক পোস্ট করতে পারেন।   মানসম্মত লেখা নামসহ সাইটে স্থায়ীভাবে পাবলিশ করা হয় । ধন্যবাদ * * *

*
1) ডাক্তার থেকে দূরে
ছেলে: বাবা, প্রতিদিন একটা আপেল খেলে নাকি ডাক্তার থেকে দূরে থাকা যায়?
বাবা: হুমম, যায় তো।
ছেলে: তাহলে একটা আপেল দাও তো।
বাবা: তুই না আপেল খেতে চাস না! আজ কী হলো হঠাৎ?
ছেলে: ডাক্তার সাহেবের গাড়ির জানালা ভেঙে ফেলেছি তো!


2) তিন পাগলের অংক
দীর্ঘদিন চিকিৎসা করার পর তিন পাগলকে নিয়ে বসেছেন চিকিৎসক।
চিকিৎসক: বলো তো, ৩ কে ৩ দিয়ে গুণ করলে কত হয়?
প্রথম পাগল: ৩৯৮
হতাশ চিকিৎসক দ্বিতীয় জনকেও একই প্রশ্ন করলেন।
দ্বিতীয় পাগল: মঙ্গলবার
হতাশ হয়ে চিকিৎসক তৃতীয় জনকেও একই প্রশ্ন করলেন।
তৃতীয় পাগল: ৯
‘ভেরি গুড! এবার বলো তো, তুমি এটা কীভাবে বের করলে।’ খুশি হয়ে বললেন চিকিৎসক।
তৃতীয় পাগল: খুবই সহজ! ৩৯৮ থেকে মঙ্গলবার বিয়োগ করেছি!


3) ঘুমের ওষুধ
নার্স ঘুমন্ত রোগীকে জোর করে ডেকে তুলছেন দেখে চিকিৎসক জিজ্ঞেস করলেন, আরে আরে, করছেন কী? অযথা ঘুমন্ত রোগীকে ডাকছেন কেন?
নার্স মুখ কাঁচুমাচু করে বললেন, ‘স্যার, রোগীর এখন ওষুধ খাওয়ার সময়। না ডাকলে সঠিক সময়ে তাঁর ওষুধ আর খাওয়া হবে না।’
চিকিৎসক রেগে অগ্নিশর্মা হয়ে বললেন, তা কী সেই ওষুধ, যেটা তাকে এখনই খাওয়াতে হবে?
‘ঘুমের ওষুধ স্যার’, নার্সের জবাব।


4) কানের মধ্যে টিকটিকি
চিকিৎসক-রোগীর মধ্যে কথা হচ্ছে—
রোগী: স্যার, আমার কানের মধ্যে একটি টিকটিকি ঢুকে গেছে।
চিকিৎসক: কখন?
রোগী: সকাল আটটার দিকে।
চিকিৎসক: আরে, এখন দুপুর ১২টা বাজে! আপনি আগে আসেননি কেন?
রোগী: আমি ভেবেছিলাম, সকাল ছয়টার দিকে আমার কানে যে পোকাটা ঢুকেছিল, মাছি ওটাকে খেয়েই বের হবে। কিন্তু এখন দেখছি মাছি-টিকটিকি কোনোটাই বেরোচ্ছে না।


5) ঘুমানোর পরে আর ঘুম থেকে জেগে ওঠার আগে
সঞ্জু এসেছে চিকিৎসকের কাছে। চিকিৎসকের চেম্বারে ঢুকেই সঞ্জু বললেন, ‘স্যার, আমি খুব বিপদে আছি। খাওয়ার পর আমার আর খিদে পায় না।’
চিকিৎসক বললেন, ‘তাই নাকি! তাহলে তো জটিল সমস্যা আপনার।’ এরপর একটু দাঁড়ান বলেই চিকিৎসক প্রেসক্রিপশন লিখে সঞ্জুকে বললেন, ‘এখানে দুটি ওষুধের নাম লেখা আছে। নিয়মমাফিক খেলেই ঠিক হয়ে যাবেন। আর শুনুন, এক নম্বর ওষুধটি খাবেন ঘুমানোর পরে, আর দুই নম্বরটি ঠিক ঘুম থেকে জেগে ওঠার আগেই খাবেন।’


6) চাবি গিলে ফেলেছি
মন্টু ও চিকিৎসকের মধ্যে কথা হচ্ছে—
মন্টু: স্যার, আমি বাসার চাবি গিলে ফেলেছি।
ডাক্তার: বলেন কী! কখন এ ঘটনা ঘটালেন?
মন্টু: তা প্রায় মাস দুয়েক হবে।
ডাক্তার: এত দিন আসেননি কেন?
মন্টু: স্যার, তখন একটি নকল চাবি বানিয়ে নিয়েছিলাম। আজকে সেটাও হারিয়ে গেছে, তাই বাধ্য হয়ে আপনার শরণাপন্ন হয়েছি।

7) ওষুধ গেলানো
রোগী: বাসার পাশের রাস্তায় কুকুরগুলো রোজ রাতে নিয়ম করে হল্লা করে। কিছুতেই ঘুমাতে পারি না।
ডাক্তার: এই ঘুমের বড়িটা নতুন এসেছে। খুব ভালো কাজ দেয়।
রোগী ওষুধ নিয়ে চলে গেল। কিন্তু এক সপ্তাহ বাদেই ফিরে এসে বলল, ‘এখনো আমার ঘুমের সমস্যা হচ্ছে।’
ডাক্তার প্রশ্ন করে, কিন্তু ওষুধটা তো বেশ ভালো। অনেকেরই কাজ হয়েছে।
রোগী: তাতে কি, সারা রাত কুকুরগুলোকে ধাওয়া করে একটা যদিও ধরতে পারি, কিছুতেই বদমাশটাকে ওষুধ গেলানো যায় না।


8) তা হলে দুঃসংবাদ
গাইনোকোলজিস্ট অনেকক্ষণ ধরে রোগীকে পরীক্ষা করে বললেন, মিসেস রেহানা, আপনাকে একটা সুসংবাদ দিচ্ছি।
: মিসেস নয়, বলুন মিস।
: ও আমাকে ক্ষমা করবেন, তা হলে আপনাকে দুঃসংবাদই দিতে হচ্ছে।


9) টোব্যাকো থেকে দুরে
গড়গড়া দিয়ে তামাক টানছেন এক ভদ্রলোক। নলটা অনেক লম্বা। গড়গড়াটা এক কোণে আর ভদ্রলোক বসে আছেন ঘরের অন্য কোণে।
এ সময় তার বন্ধু ঘরে ঢুকে বলল, কী ব্যাপার, সিগারেট ছেড়ে গড়গড়া টানছ কেন?
আর নলটাই বা এত লম্বা কেন?
ভদ্রলোক বললেন, ডাক্তার আমাকে টোব্যাকো থেকে দুরে থাকতে বলেছেন।



* * * এসংক্রান্ত আরও মজার কৌতুক =>> * * *


* * * Anupamasite-এ আপনাকে স্বাগতম। আপনার পছন্দমত যে কোন ধরনের লেখা পোস্ট করতে এখানে ক্লিক করুন।   আপনাদের পোস্ট করা লেখাগুলো এই লিংকে আছে, দেখতে এখানে ক্লিক করুন। ধন্যবাদ * * *

জ্ঞানই শক্তি ! তাই- আগে নিজে জানুন , শেয়ার করে প্রচারের মাধ্যমে অন্যকেও জানতে সাহায্য করুন।

Say something

Please enter name.
Please enter valid email adress.
Please enter your comment.