বাংলা সুনির্বাচিত কৌতুক Bangla Selected Jokes

হাসলে নাকি আয়ু বাড়ে- তাই হাসুন, মন খুলে হাসুন, কারণ হাসলে হার্ট / হৃদয় / মন ভালো থাকে => আর মন ভালো- তো সবই ভালো।

অধিকাংশ জোকস অনলাইন থেকে সংগৃহীত- শুধুমাত্র আপনাদের আনন্দ বিধানের জন্যই এই প্রচেষ্টা, কাউকে ছোট বা হেয় করার উদ্দেশ্যে নয় ; তাই এ ব্যাপারে কারো কোন আপত্তি থাকলে এডমিনকে অবশ্যই জানাতে ভুলবেন না।

* * * Anupamasite-এ আপনাকে স্বাগতম। আপনার পছন্দমত যে কোন ধরনের লেখা বা কৌতুক পোস্ট করতে পারেন।   মানসম্মত লেখা নামসহ সাইটে স্থায়ীভাবে পাবলিশ করা হয় । ধন্যবাদ * * *

*
1) তাইলে ঠিক মতই পালাইছি

ক্রিং ক্রিং !!! বেজে উঠলো পাগলাগারদের টেলিফোনটা । রিসিপশনিস্ট মেয়েটা ফোন ধরে বললেন,'' হেল্লো ,কিভাবে সাহায্য করতে পারি? ওপাশ থেকে উত্তর দিল ,'' আপা , দেখেন তো রুম নাম্বার ৪৭ এ কেউ আছেনি ? মেয়েটা জবাব দিল ,'' জ্বিনা ,কেউ নাই ,আপনি কাকে চাচ্ছেন ? লোকটা আবার বলল ,'' দেখেন তো ভালো মত ,কেউ আছে কিনা ,সিউর হইয়া বলেন না প্লিজ মেয়েটা রুম নাম্বার ৪৭ এ গেল ,ভালমত দেখে এসে নললো ,''না রে ভাই,কেউ নাই... আপনি কাকে চাচ্ছেন ?অপরপ্রান্ত হতে উত্তর আসলো,'' যাক,তাইলে ঠিক মতই পালাইছি


2) মানসিক হাসপাতালের চিকিৎসক ও রোগী

মানসিক হাসপাতালের চিকিৎসক প্রতিদিনের মতো সকালে গিয়েছেন রোগীদের খোঁজখবর নিতে। এক নম্বর কক্ষে ঢুকে দেখেন, একজন মাটিতে বসে খুব মনোযোগ দিয়ে কিছু একটা কাটছে। আরেকজন উল্টো হয়ে ছাদের একটা কাঠে পা বেঁধে ঝুলে আছে।
চিকিৎসক প্রথমজনকে জিজ্ঞেস করলেন, "কী করছেন আপনি?" কেন দেখতে পারছেন না, আমি একটা কাঠ কাটছি। ও আচ্ছা, কাঠ কাটছেন, ভালো কথা। ছাদের জনকে দেখিয়ে বললেন, "কিন্তু উনি ছাদে এভাবে উল্টো হয়ে ঝুলে কী কী আর করবে, সে আসলে নিজেকে একটা বাল্ব ভাবছে।
চিকিৎসক চিন্তিত মুখে বললেন, "কিন্তু তার সব রক্ত তো মাথায় চলে এসেছে, ভয়ানক ব্যাপার এটা। আপনি তার বন্ধু হয়েও এটা দেখছেন? তাকে নামানোর চেষ্টা করছেন না কেন?"
তা শুনে প্রথমজন দাঁত কেলিয়ে হেসে বলে, "আরে ধুর, ওরে নামাইলে তো সব অন্ধকার হয়ে যাবে। তখন আমি কাজ করব কিভাবে...?"


3) একটি পাগলা গারদে সব পাগল নাচানাচি করছিল

একটি পাগলা গারদে সব পাগল নাচানাচি করছিল.. শুধু একজন পাগল বসে ছিল... ডাক্টার ভাবল সেই পাগলটা মনে হয় ভাল হয়ে গেছে । তাই তাকে জিগ্গেস করা হল সবাই নাচছে তুমি নাচছ না কেন? উত্তরে পাগলটি বলল... " আরে গাঁধাঁ বিয়ে বাড়ীতে কি জামাই কখনো নাচে....


4) তাকে রোদে শুকাইতে দিছি

এক পাগল অনেক দিন ধরে এক মেন্টান হসপিটাল এ চিকিৎসাধীন। এক দিন পাগলটি এক লোককে পানিতে পরে ডুবে যেতে দেখে তাকে পানি থেকে টেনে তুলল। এ ঘটনা এক ডাক্তার দেখে মনে মনে ভাবল যে পাগল মানুষের প্রান বাচাঁতে পারে সে নিশ্চয় আর পাগল নেই। সে সুস্থ্য হয়ে গেছে। এই ভেবে সে পাগলকে তার চেম্বারে ডেকে পাঠলো। ডাক্তার পাগল কে বলল, আমার মনে হয় তুমি সুস্থ্য হয়ে গেছ এবং আমরা তোমাকে ছেড়ে দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ সময় এক নার্স এসে খবর দিল, পাগলটি যে লোককে বাঁচিয়েছিল, সে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এ কথা শুনে ডাক্তার পাগল কে বলল, দেখ, খুবই দুঃখের কথা যে তুমি যে লোককে বাঁচিয়েছিলে, সে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তখন পাগটি বলল, লোকটি তো মরেনি, সে পানিতে ভিজে গিয়েছিল তো, তাই তাকে রোদে শুকাইতে দিছি।


5) এক বুড়া বারে গিয়ে মদ গিলতো

এক বুড়া বারে গিয়ে মদ গিলতো। আর মাতাল হয়ে তার গায়ের চাদর হারিয়ে আসতো।তাই তার বউ বুড়াকে খুব ঝাড়তো। একদিন বুড়া ঠিক করলো আজকে বারে যাওয়ার আগে গায়ের সাথে চাদরটা খুব টাইট করে গিট্টু লাগায় নিবে….তাহলে আর হারাবে না। রাতের বেলা হেবি করে মাল টাল খেয়ে বাসায় বুড়া ফিরলো।। বুড়িকে ঢলতে ঢলতে বলল, “দেখেছো..আজকে গায়ের চাদর ঠিকঠাক আছে…. বুড়ি বলল,”তা ঠিক বলেছো, কিন্তু তোমার লুঙ্গি কই???”


6) দুধ খেলে নাকি শক্তি বাড়ে

বল্টু: লোকে বলে দুধ খেলে নাকি শক্তি বাড়ে !!
বল্টুর বন্ধু :হ্যাঁ, সত্যিই তো বাড়ে, কোন সন্দেহ আছে ??
বল্টু : ধুর ! পাঁচ গ্লাস দুধ খেয়ে এই দেয়ালটা আধাঘণ্টা ধইরা ধাক্কাইলাম,
এক ইঞ্চিও নড়ে নাই ! সব ভূয়া !
এখন পাঁচ গ্লাস মদ খেয়ে আসলাম! দেখি দেয়ালটা আমারে দেইখা নিজেই কেমন ভয়ে কাঁপতাছে


7) কোন কাঠিই জ্বলছে না

এক মাতাল সন্ধার দিকে পকেট থেকে ১টা ম্যাচ বের করে একের পর এক কাঠি ঘষে চললো। কিন্তু কোন কাঠিই জ্বলছে না । অবশেষে একটা কাঠি জ্বলে উঠলো। তখন সে অতিযত্নে কাঠিটা নিভিয়ে ম্যাচ বাক্সে রেখে দিল । কি রে, পোরা কাঠি আবার রেখে দিলি কেন ? আরে বন্ধু, পুরো ম্যাচে মাত্র একটা কাঠি ভাল। এখনি যদি ব্যবহার করে ফেলি তবে বাসায় যেয়ে হারিকেন জ্বলাব কি দিয়ে?


8) নাইট শো সিনেমা দেখে বাড়ি ফিরছে

নাইট শো সিনেমা দেখে বাড়ি ফিরছে এক লোক। এঠাৎ দেখল, তার আগে একটা মাতাল টলতে টলতে যাচ্ছে। তার একটা পা ফুটপাতের উপরে, একটা পা রাস্তায়। লোকটি এগিয়ে গিয়ে মাতালটাকে রাস্তায় নামিয়ে দিল। মাতাল তখন সোজা হয়ে হাঁটতে হাঁটতে বলল, আমি ভেবেছিলাম আমি বুঝি খোঁড়া হয়ে গেছি।

* * * এসংক্রান্ত আরও মজার কৌতুক =>> * * *


* * * Anupamasite-এ আপনাকে স্বাগতম। আপনার পছন্দমত যে কোন ধরনের লেখা পোস্ট করতে এখানে ক্লিক করুন।   আপনাদের পোস্ট করা লেখাগুলো এই লিংকে আছে, দেখতে এখানে ক্লিক করুন। ধন্যবাদ * * *

জ্ঞানই শক্তি ! তাই- আগে নিজে জানুন , শেয়ার করে প্রচারের মাধ্যমে অন্যকেও জানতে সাহায্য করুন।

Say something

Please enter name.
Please enter valid email adress.
Please enter your comment.